, , ,
h9090
ব্রেকিং নিউজ
  • বরিশালে বিএনপি’র মিছিলে পুলিশের বাধা
  • বরিশালে শিক্ষকদের প্রতিবাদ সভা
  • হিজলায় এক রাতে তিন ঘরে ডাকাতি
  • উজিরপুরে সন্ধ্যা নদীতে ৩ লক্ষাধীক টাকার অবৈধ জাল আটক
  • বাকেরগঞ্জে ইয়াবাসহ আটক -১

Notice: Undefined variable: dexc in /home/barisalmail24/public_html/wp-content/themes/newspaper.bak/inc/retrive_functions.php on line 279

Notice: Undefined variable: cexc in /home/barisalmail24/public_html/wp-content/themes/newspaper.bak/inc/retrive_functions.php on line 282
Add
Saturday, July 2, 2016 11:38 am
A- A A+ Print

লালমোহনের ঈদ বাজারে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড়

  শান্ত সাহা লালমোহন ॥ মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ। আর এই ঈদ কে ধনী গরিব সকলে নতুন পোশাকে বরন করতে জমে উঠা লালমোহনের ঈদ বাজারে বেশ কয়েকদিন যাবত লক্ষ করা যায় ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড়। পৌর শহরের প্রতিটি বিপনী বিতান থেকে শুরু করে জুতা ও কসমেটিকস্ সামগ্রীর দোকানগুলোতে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে বেচা বিক্রি। সর্বত্রই যেন বিরাজ করছে ঈদ আনন্দ। পোশাক ,জুতা, মনিহারি সহ নানান প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার জন্য সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছুটছেন ক্রেতারা। সদর রোড, চৌরাস্তার মোড়, হাইস্কুল রোড, মিয়া প্লাজা, হাজী ইউসুফ প্লাজা, সওদাগর সুপার মার্কেট, তাহের প্লাজা, নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন সুপার মার্কেট সহ প্রতিটি মার্কেটই ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষণীয়। সরেজমিনকালে একাধীক ক্রেতা অভিযোগ করে বলেন, ইচ্ছেমত পোশাকের দাম হাকছে দোকানীরা। বিশেষ করে নিউ ফ্যাশন, জুঁই গামেন্টস্, ঢাকা ফ্যাশন, বাপ্পী ফ্যাশন সহ বেশ কয়েটি রেডিমেট পোশাক বিক্রর দোকানগুলো ঈদকে পুজিঁ করে মেতে উঠেছে গলাকাটা বানিজ্যে। প্রতিনিয়তই ক্রেতাদের ঠাকাচ্ছে এ কয়টি বিপনী বিতানের মালিকরা। অপরদিকে লালমোহনের ঈদ বাজার দখল করে রেখেছে ভারত এবং পাকিস্তানী পোশাক। পুরুষের তুলনায় নারীরাই ভারতীয় পোশাকের দিকে বেশী ঝুঁকছেন। ফুটপাত থেকে শুরু করে নামী-দামী বিপনী বিতানগুলোতেও শোভা পাচ্ছ ভারতীয় বিভিন্ন তারকাদের নামের সাথে মিল থাকা নানান রং বেরং এর পোশাকগুলো। আর এসব পোশাকের দাম হাকানো হচ্ছে ক্রয় মূলের চেয়ে প্রায় দুই তিন গুন বেশী। ফলে প্রতিনিয়ই ঠকছে লালমোহনের ঈদ বাজারের ক্রেতা সাধারন। এদিকে ঈদ দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই নির্ঘুম ব্যস্ততা বাড়ছে দর্জি কারিগরদের। সরজমিনে কিছু দর্জি কারিগরদের সাথে আলাপ কালে তারা প্রতিবেদক বলেন, “ ভাই যে পরিমান পরিশ্রম করি সে পরিমান পরিশ্রমীক দেয় না বিপনী বিতানের মালিকরা। পেট চালানোর জন্য এই কাজ করতে বাধ্য হচ্ছি।প্রতিদিন সকাল থেকে নীশিরাত পর্যন্ত অভিরাম যুদ্ধ করি নিজেরর শীরের সাথে তারপরও মালিকরা নায্য মূর দেয় না। নিজের পরিবারের সদস্যদের ঈদের মার্কেট এখনো করতে পরিনি। [fbcomments url="http://barisalmail24.com/archives/12930" count="on" num="5" countmsg="Comments!"]
 বরিশাল মেইল২৪.কম

লালমোহনের ঈদ বাজারে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড়

Saturday, July 2, 2016 11:38 am

 

শান্ত সাহা লালমোহন ॥
মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ। আর এই ঈদ কে ধনী গরিব সকলে নতুন পোশাকে বরন করতে জমে উঠা লালমোহনের ঈদ বাজারে বেশ কয়েকদিন যাবত লক্ষ করা যায় ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড়। পৌর শহরের প্রতিটি বিপনী বিতান থেকে শুরু করে জুতা ও কসমেটিকস্ সামগ্রীর দোকানগুলোতে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে বেচা বিক্রি। সর্বত্রই যেন বিরাজ করছে ঈদ আনন্দ। পোশাক ,জুতা, মনিহারি সহ নানান প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার জন্য সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছুটছেন ক্রেতারা। সদর রোড, চৌরাস্তার মোড়, হাইস্কুল রোড, মিয়া প্লাজা, হাজী ইউসুফ প্লাজা, সওদাগর সুপার মার্কেট, তাহের প্লাজা, নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন সুপার মার্কেট সহ প্রতিটি মার্কেটই ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষণীয়। সরেজমিনকালে একাধীক ক্রেতা অভিযোগ করে বলেন, ইচ্ছেমত পোশাকের দাম হাকছে দোকানীরা। বিশেষ করে নিউ ফ্যাশন, জুঁই গামেন্টস্, ঢাকা ফ্যাশন, বাপ্পী ফ্যাশন সহ বেশ কয়েটি রেডিমেট পোশাক বিক্রর দোকানগুলো ঈদকে পুজিঁ করে মেতে উঠেছে গলাকাটা বানিজ্যে। প্রতিনিয়তই ক্রেতাদের ঠাকাচ্ছে এ কয়টি বিপনী বিতানের মালিকরা। অপরদিকে লালমোহনের ঈদ বাজার দখল করে রেখেছে ভারত এবং পাকিস্তানী পোশাক। পুরুষের তুলনায় নারীরাই ভারতীয় পোশাকের দিকে বেশী ঝুঁকছেন। ফুটপাত থেকে শুরু করে নামী-দামী বিপনী বিতানগুলোতেও শোভা পাচ্ছ ভারতীয় বিভিন্ন তারকাদের নামের সাথে মিল থাকা নানান রং বেরং এর পোশাকগুলো। আর এসব পোশাকের দাম হাকানো হচ্ছে ক্রয় মূলের চেয়ে প্রায় দুই তিন গুন বেশী। ফলে প্রতিনিয়ই ঠকছে লালমোহনের ঈদ বাজারের ক্রেতা সাধারন। এদিকে ঈদ দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই নির্ঘুম ব্যস্ততা বাড়ছে দর্জি কারিগরদের। সরজমিনে কিছু দর্জি কারিগরদের সাথে আলাপ কালে তারা প্রতিবেদক বলেন, “ ভাই যে পরিমান পরিশ্রম করি সে পরিমান পরিশ্রমীক দেয় না বিপনী বিতানের মালিকরা। পেট চালানোর জন্য এই কাজ করতে বাধ্য হচ্ছি।প্রতিদিন সকাল থেকে নীশিরাত পর্যন্ত অভিরাম যুদ্ধ করি নিজেরর শীরের সাথে তারপরও মালিকরা নায্য মূর দেয় না। নিজের পরিবারের সদস্যদের ঈদের মার্কেট এখনো করতে পরিনি।

সম্পাদকঃ মোঃ জিহাদ রানা।
গির্জ্জা মহল্লা,বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭৫৭৮০৭৩৮৩
ইমেইল : barisalmail24@gmail.com
বরিশালের একটি ২৪/৭ অনলাইন নিউজ মিডিয়া।