, , ,
h9090
ব্রেকিং নিউজ
  • বরিশালে বিএনপি’র মিছিলে পুলিশের বাধা
  • বরিশালে শিক্ষকদের প্রতিবাদ সভা
  • হিজলায় এক রাতে তিন ঘরে ডাকাতি
  • উজিরপুরে সন্ধ্যা নদীতে ৩ লক্ষাধীক টাকার অবৈধ জাল আটক
  • বাকেরগঞ্জে ইয়াবাসহ আটক -১

Notice: Undefined variable: dexc in /home/barisalmail24/public_html/wp-content/themes/newspaper.bak/inc/retrive_functions.php on line 279

Notice: Undefined variable: cexc in /home/barisalmail24/public_html/wp-content/themes/newspaper.bak/inc/retrive_functions.php on line 282
Add
Monday, May 30, 2016 7:58 pm
A- A A+ Print

অনিবন্ধিত সিম সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে প্রস্তুত অপারেটররা

মোবাইল ফোনের সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশনে সরকারের বেঁধে দেওয়া সময় শেষ হচ্ছে আজ রাত ১২টায়। এ সময়ের মধ্যে যেসব সিমের নিবন্ধন হবে না, সেগুলো পরদিন ১ জুন থেকে বন্ধ হয়ে যাবে। এসব সিম দুই মাসের আগে সচল করা যাবে না। দুমাস অতিক্রান্ত হওয়ার পর পুরনো নম্বর পেতে নতুন করে সিম কিনতে এবং তখন অবশ্যই বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করতে হবে। এদিকে পুনর্নিবন্ধনহীন সিমের সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করার নির্দেশনা চেয়ে গতকাল সোমবার সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালতে আবেদন করা হয়েছে। আজ এ আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে। আদালতে আবেদনকারী আইনজীবী অনিক আর হক বলেন, আমরা আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছি, যত দিন আবেদনের শুনানি শেষ না হবে, তত দিন যেন কোনো অনিবন্ধিত সিমের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা না হয়। জানা গেছে, গত রোববার পর্যন্ত বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে আঙুলের ছাপ দিয়ে পুনর্নিবন্ধন হয়েছে প্রায় ১০ কোটি ৩০ লাখ সিম। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, গত এপ্রিলের শেষ নাগাদ দেশে সচল মোবাইল সিমের সংখ্যা ১৩ কোটি ১৯ লাখ ৪৯ হাজার। অর্থাৎ সর্বশেষ হিসাবে ৩ কোটি সিম নিবন্ধন করা হয়নি। অন্যদিকে গত চার মাসে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধনসহ বিক্রি হয়েছে ৭২ লাখ নতুন সিম। এ খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সামগ্রিকভাবে দুই লক্ষাধিক কার্যকর সিম কমে গেলে ঝুঁকির মধ্যে পড়বে মোবাইল ফোন খাত। সচিবালয়ের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে গত শনিবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর মুখপাত্ররাও উপস্থিত ছিলেন। তারা জানান, অনিবন্ধিত সিমগুলো তারা সহজেই শনাক্ত করতে পেরেছেন এবং সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসব সিম বন্ধ করতে প্রস্তুত আছেন। সে সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, জনগণের স্বার্থে নিবন্ধনের সময় বৃদ্ধি করা হয়েছিল, আর বৃদ্ধি করা হবে না। ৩১ মের পর অনিবন্ধিত সিমগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে, যা দুই মাসের আগে কেউ চালু করতে পারবেন না। গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়। মোবাইল অপারেটরগুলোর কর্মকর্তারা বলছেন, নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হওয়ার পর প্রায় ৩ কোটি চালু সিম বন্ধ হয়ে গেলে তারা বড় রকম আর্থিক ক্ষতির মধ্যে পড়বেন। যেটি সামগ্রিকভাবে এ খাত থেকে সরকারের আয়ের ওপরও প্রভাব ফেলবে। তবে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, এ খাত থেকে সরকারের আয় অন্যদিক দিয়ে বাড়ানো সম্ভব হবে। সে ক্ষেত্রে ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে নেওয়া যাবে। এদিকে শেষদিনের মতো বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন করতে অপারেটর কোম্পানিগুলোর কাস্টমার কেয়ার সেন্টারগুলোতে গতকাল গ্রাহকদের লম্বা লাইন দেখা গেছে। গ্রাহকদের আঙুলের ছাপ সংগ্রহ ও শনাক্তকরণ করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট এজেন্টরা প্রায়ই নেটওয়ার্ক বিপত্তি বা মারাত্মক ডাউন প্রবলেমের মধ্যে পড়ছেন বলে অভিযোগ আছে। এ প্রসঙ্গে তারানা হালিম জানান, সব অপারেটরকে সার্ভারের সঙ্গে সংযোগ নিরবচ্ছিন্ন রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, যেন গ্রাহকরা কোনো হয়রানি ছাড়াই নিবন্ধন সম্পন্ন করতে পারেন। [fbcomments url="http://barisalmail24.com/archives/12668" count="on" num="5" countmsg="Comments!"]
 বরিশাল মেইল২৪.কম

অনিবন্ধিত সিম সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে প্রস্তুত অপারেটররা

Monday, May 30, 2016 7:58 pm

মোবাইল ফোনের সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশনে সরকারের বেঁধে দেওয়া সময় শেষ হচ্ছে আজ রাত ১২টায়। এ সময়ের মধ্যে যেসব সিমের নিবন্ধন হবে না, সেগুলো পরদিন ১ জুন থেকে বন্ধ হয়ে যাবে। এসব সিম দুই মাসের আগে সচল করা যাবে না। দুমাস অতিক্রান্ত হওয়ার পর পুরনো নম্বর পেতে নতুন করে সিম কিনতে এবং তখন অবশ্যই বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করতে হবে।

এদিকে পুনর্নিবন্ধনহীন সিমের সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করার নির্দেশনা চেয়ে গতকাল সোমবার সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালতে আবেদন করা হয়েছে। আজ এ আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে। আদালতে আবেদনকারী আইনজীবী অনিক আর হক বলেন, আমরা আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছি, যত দিন আবেদনের শুনানি শেষ না হবে, তত দিন যেন কোনো অনিবন্ধিত সিমের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা না হয়।

জানা গেছে, গত রোববার পর্যন্ত বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে আঙুলের ছাপ দিয়ে পুনর্নিবন্ধন হয়েছে প্রায় ১০ কোটি ৩০ লাখ সিম। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, গত এপ্রিলের শেষ নাগাদ দেশে সচল মোবাইল সিমের সংখ্যা ১৩ কোটি ১৯ লাখ ৪৯ হাজার। অর্থাৎ সর্বশেষ হিসাবে ৩ কোটি সিম নিবন্ধন করা হয়নি। অন্যদিকে গত চার মাসে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধনসহ বিক্রি হয়েছে ৭২ লাখ নতুন সিম। এ খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সামগ্রিকভাবে দুই লক্ষাধিক কার্যকর সিম কমে গেলে ঝুঁকির মধ্যে পড়বে মোবাইল ফোন খাত।

সচিবালয়ের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে গত শনিবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর মুখপাত্ররাও উপস্থিত ছিলেন। তারা জানান, অনিবন্ধিত সিমগুলো তারা সহজেই শনাক্ত করতে পেরেছেন এবং সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসব সিম বন্ধ করতে প্রস্তুত আছেন। সে সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, জনগণের স্বার্থে নিবন্ধনের সময় বৃদ্ধি করা হয়েছিল, আর বৃদ্ধি করা হবে না। ৩১ মের পর অনিবন্ধিত সিমগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে, যা দুই মাসের আগে কেউ চালু করতে পারবেন না।
গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়।

মোবাইল অপারেটরগুলোর কর্মকর্তারা বলছেন, নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হওয়ার পর প্রায় ৩ কোটি চালু সিম বন্ধ হয়ে গেলে তারা বড় রকম আর্থিক ক্ষতির মধ্যে পড়বেন। যেটি সামগ্রিকভাবে এ খাত থেকে সরকারের আয়ের ওপরও প্রভাব ফেলবে। তবে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, এ খাত থেকে সরকারের আয় অন্যদিক দিয়ে বাড়ানো সম্ভব হবে। সে ক্ষেত্রে ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে নেওয়া যাবে।

এদিকে শেষদিনের মতো বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন করতে অপারেটর কোম্পানিগুলোর কাস্টমার কেয়ার সেন্টারগুলোতে গতকাল গ্রাহকদের লম্বা লাইন দেখা গেছে। গ্রাহকদের আঙুলের ছাপ সংগ্রহ ও শনাক্তকরণ করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট এজেন্টরা প্রায়ই নেটওয়ার্ক বিপত্তি বা মারাত্মক ডাউন প্রবলেমের মধ্যে পড়ছেন বলে অভিযোগ আছে। এ প্রসঙ্গে তারানা হালিম জানান, সব অপারেটরকে সার্ভারের সঙ্গে সংযোগ নিরবচ্ছিন্ন রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, যেন গ্রাহকরা কোনো হয়রানি ছাড়াই নিবন্ধন সম্পন্ন করতে পারেন।

সম্পাদকঃ মোঃ জিহাদ রানা।
গির্জ্জা মহল্লা,বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭৫৭৮০৭৩৮৩
ইমেইল : barisalmail24@gmail.com
বরিশালের একটি ২৪/৭ অনলাইন নিউজ মিডিয়া।